দ্রব্যমূল্যের দাম আপনার হাতে, আপনি চাইলেই কমানো সম্ভব

আপনি কি চান সবকিছুর দাম আপনার নাগালের মধ্যে আসুক?

তাহলে আসুন, দেখি এক হওয়া যায় কি না!

১. কাঁচামাল-

২০ টাকার বেগুের দাম এক লাফে ৮০ টাকা হল,
আর শুনেই আমরা হুমড়ি খেয়ে পড়লাম বেগুনের উপর, ১৫ টাকার তরমুজ ৪০ টাকা কেজি দাম ধরা হল আমরাও নাছোড় বান্দা যখন যেটার দাম বাড়নো হবে ঠিক তখুনি ওটাই আমাদের চাই ই চাই। আরে ভাই মাত্র সাতটা দিনের জন্য ওগুলো বর্জন করুন, দেখবেন ভ্যানে করে আপনার বাড়ির সামনে নিয়ে মাইকিং করে ২০ টাকার বেগুন ১০ টাকা আর ১৫ টাকার তরমুজ ৫ টাকায় দিচ্ছে।

২. মাংস-

এই সেদিন ও গরুর মাংস ৬০০/৬৫০ টাকা কেজি ছিলো, চোখের পলকে তা ৬৫০/৬৮০ টাকা হল,
আর ঈদের আগের রাতে এক লাফে তা ৭০০ টাকায়
পৌঁছে গেলো,
কেনরে ভাই? কেন দিলেন কেজিতে ২০ টাকা বেশি?
সবাই মিলে একটা বার না বললে ওরা মাংস নিয়ে যেতো কোথায়? আপনার চারপাশের বহু লোক তো বছরে বড়জোর একদিন গরুর মাংস খেতে পায় আপনি নাহয় একটা মাস খেলেন না, আপনার একটা না ই পারতো ওই পণ্যকে সহনশীল দামে নিয়ে আসতে।

৩. মিষ্টির দোকান এবং হোটেলে প্রতিটি জিনিসের দাম বাড়ানো হয়েছে,

সাথে আকৃতি ছোট করা হয়েছে, একবারও প্রতিবাদ করেছেন কখনো এর? মাত্র একটা মাসের জন্য ওসব বর্জন করে দেখুন দাম না হোক অন্তত সবকিছুর আকার আকৃতি আগের জায়গায় ফিরতে বাধ্য।

এমন হাজারো উদাহরণ আছে, যার প্রত্যেকটারই লাগাম আমাদের হাতে, প্রতিটা কাঁচামালের ক্ষেত্রে হিসাব ওই একই, দাম বাড়লেই হুমড়ি খেয়ে ৫/১০ কেজি একসাথে কেনা বর্জন করুন,
বেশি না কেবল একটা সপ্তাহের জন্য সরে আসলেই
কেউ ওটার অভাবে মারা পরবেন না,
কিন্তু অসাধু ব্যবসায়ী ওখান থেকে সরে আসতে বাধ্য
হবেন, এখন প্রয়োজন কেবল সম্মিলিত প্রচেষ্টা।
আর কিছু নয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top