E Service

ডোমেইন কি? ডোমেইন কত প্রকার এবং ডোমেইন এর ব্যবহার

ডোমেইন কি? ডোমেইন কত প্রকার এবং ডোমেইন এর ব্যবহার একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য এবং ওয়েবসাইটের পরিচিতির জন্য ডোমেইন খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ডোমেইন ছাড়া আমরা একটি ওয়েবসাইটকে মনে রাখা খুবই কষ্টকর।

এক একটি ওয়েবসাইটের ডোমেইন একেক রকমের। একটি ওয়েবসাইটের ডোমেন খুব ইউনিক হয়। মানে আপনি একটি ওয়েবসাইটের ডোমেন অন্য সাইটে ব্যবহার করতে পারবেন না। সাধারণত ওয়েবসাইটের বিষয়ের উপর নির্ভর করে ওয়েবসাইটের মালিকগণ ওয়েবসাইটের ডোমেইন নির্ধারণ করে।

যদি আপনার ওয়েবসাইট টেকনোলজি রিলেটেড হয় তাহলে আপনি টেকনোলজি রিলেটেড একটি সুন্দর ডোমেন নির্বাচন করবেন। ওয়েবসাইটের ডোমেইনগুলো ছোট রাখার চেষ্টা করবেন, এতে করে আপনার ওয়েবসাইটের নাম আপনার ভিজিটর দের মনে থাকবে।

ডোমেইন কি?

ডোমেইন বা ডিএনএ সিস্টেম হল এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে ইন্টারনেটের কোটি কোটি ওয়েবসাইটের মধ্যে আপনার ওয়েবসাইটকে আলাদা করে রাখে। মানে আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন দিয়ে যদি কেউ কোন ব্রাউজারে সার্চ করে তাহলে তাকে আপনার ওয়েবসাইটে সরাসরি নিয়ে যাবে।

ডোমেইন কি

আপনি যখন কোন হোস্টিং ব্যবহার করে কোন ওয়েবসাইট তৈরি করেন তখন আপনাকে একটি ইউনিক আইপি এড্রেস দেওয়া হয়। যে আইপি এড্রেসটি ভিজিটরদের মনে রাখা খুবই কষ্টকর হয়। এই সমস্যা সমাধানের জন্য ডোমেইন নেম সিস্টেম বা ডিএনএস সিস্টেম চালু হয়। ডোমেইন সিস্টেমে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আলাদা একটি ওয়েবসাইট এড্রেস নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। যে এড্রেস দিয়ে সার্চ করলে ভিজিটররা সরাসরি আপনার ওয়েবসাইটে যেতে পারবে।

ডোমেইন কত প্রকার

বিভিন্ন ব্যবহারিক দিক থেকে ডোমেইন বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয়। বিভিন্ন ডোমেইনকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ব্যবহার করা হয়।

১. টপ লেভেল ডোমেইন: টপ লেভেল ডোমেইন কে এসইও ফ্রেন্ডলি ডোমেন ও বলা হয়। কারণ এই ধরনের ডোমেইনগুলোকে সার্চ ইঞ্জিন খুব বেশি গুরুত্ব সহকারে দেখে। আপনি যদি টপ লেভেল ডোমেইন দ্বারা একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন, তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি তাড়াতাড়ি রাঙ্কিং করার সম্ভাবনা থাকবে।

তাই যদি আপনি নতুন একটি ওয়েবসাইট খোলার কথা ভাবেন তাহলে অবশ্যই একটি টপ লেভেল ডোমেইন দিয়ে ওয়েবসাইট খুলবেন।

টপ লেভেল ডোমেইন সমূহ

  1.  Com  (commercial)
  2.  Org   (Organization)
  3.  Net    (Network)
  4.  gov    (Government)
  5.  edu    (Education)
  6.  biz     (Business)
  7.  info   (Information)

টপ লেভেল ডোমেইন গুলোর দাম একটু বেশি হয়। যে কেউ টাকা দিয়ে টপ লেভেল ডোমেইন কিনে তার ওয়েবসাইটে ব্যবহার করতে পারে।

২. কান্ট্রি কোড টপ লেভেল ডোমেইন: আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ যদি কোন দেশকে টার্গেট করে করা হয় তাহলে চেষ্টা করবেন সেই দেশের কোন নির্দিষ্ট টপ লেভেল ডোমেইন ব্যবহার করা। এই ধরনের ডোমেইনগুলো কোন একটি দেশের ২ টি অক্ষরের আইএসও কোড দ্বারা তৈরি করা হয়।

এই ধরনের ডোমেইনগুলো আপনি সাধারণভাবে কিনতে পারবেন না। এই ধরনের ডোমেইনগুলো কিনতে সেই দেশের সরকারি টেলিকমিউনিকেশন ডিপার্টমেন্টের দ্বারা অনুমোদিত ওয়েবসাইট থেকেই কিনতে পারবেন। সব ধরনের কোম্পানিকে এই ধরনের ডোমেইন বিক্রি করার অনুমতি দেওয়া হয় না।

কান্ট্রি কোড টপ লেভেল ডোমেইন সমূহ:

  1. bd (Bangladesh)
  2. Us (United States)
  3. In  (India)
  4. Cn  (China)
  5. Us  (United states of America)
  6. Ro  (Romania)
  7. uk (United Kingdom)

ডোমেন ব্যবহারের সুবিধা

ডোমেইন ব্যবহারের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আলাদা একটি ওয়েব এড্রেস থাকবে। যার ফলে কেউ সেই ওয়েব এড্রেস দিয়ে সার্চ করলে আপনার ওয়েবসাইটে সরাসরি প্রবেশ করতে পারবে।

আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেন যদি ছোট হয় তাহলে যে কেউ আপনার ওয়েবসাইটের নাম মনে রাখতে পারবে। এতে করে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। তাই সব সময় চেষ্টা করবেন একটি ওয়েবসাইটের ডোমেইন কে ছোট রাখার জন্য। ডোমেন যদি বড় রাখা হয় তাহলে ওয়েবসাইটের ইউআরএল মনে রাখা কষ্টকর হয়ে যায়।

আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার কথা ভাবেন তাহলে অবশ্যই সেই ওয়েবসাইটটি টপ লেভেল ডোমেইন দ্বারা তৈরি করবেন। কারণ যেকোনো সার্চ ইঞ্জিন টপ-লেভেল ডোমেইনকে বেশি প্রায়োরিটি দিয়ে থাকে। এছাড়া টপ-লেভেল ডোমেইন এর ওয়েবসাইট গুলো তাড়াতাড়ি রেঙ্ক করে। এছাড়া টপ-লেভেল ডোমেইন এর ওয়েবসাইট গুলো এসইও করা সহজ হাওয়াই এই ধরনের ওয়েবসাইট গুলো সার্চ ইঞ্জিনে তাড়াতাড়ি গ্রো করে।

ডোমেইন ব্যবহারের অসুবিধা

ডোমেইন কি? ডোমেইন কত প্রকার এবং ডোমেইন এর ব্যবহার

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন বড় রাখেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটরদের ওই ডোমেন মনে রাখতে কষ্ট হবে। এতে করে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর সংখ্যা ধীরে ধীরে কমতে থাকবে।

এছাড়া একটি ওয়েবসাইটকে তাড়াতাড়ি রেঙ্ক করানোর জন্য টপ লেভেল ডোমেইন খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু অন্যান্য ডোমেইন এর তুলনায় টপ-লেভেল ডোমেইন এর দাম কিছুটা বেশি, যার কারণে প্রথম অবস্থায় ওয়েবসাইট খোলার সময় অনেকেরই বাজেট থাকে না। যার ফলে অনেকেই তাদের ওয়েবসাইটে প্রথম অবস্থায় টপ লেভেল ডোমেইন যুক্ত করতে পারে না।

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটকে কম দামি কোন ডোমেইন থেকে টপ লেভেল ডোমেইন এ স্থানান্তরিত করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের গ্রো কিছুটা কমে যাবে। তবে আপনি যদি ওই টপ লেভেল ডোমেইন দিয়ে ওয়েবসাইটটি দীর্ঘসময় পরিচালনা করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইট তাড়াতাড়ি পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে, এবং আপনার ওয়েবসাইটে আরো বেশি রেঙ্ক করবে।

পরিশেষে, আশা করি আপনারা একটা ডোমেইন এর গুরুত্ব বুঝতে পেরেছেন। একটি ওয়েবসাইট পরিচালনার জন্য ডোমেইন অত্যাবশ্যকীয়। ডোমেইন ছাড়া আপনি একটি ওয়েবসাইটকে পরিচালনা করতে পারবেন, কিন্তু রেঙ্ক করতে পারবেন না। তাই চেষ্টা করবেন টপ-লেভেল ডোমেইন দিয়ে একটি ওয়েবসাইট খোলার।

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button