Education Guideline

প্রতিবেদন লেখার নিয়ম ২০২২

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি আপনারা সকলে ভালো আছেন। আপনাদেরকে আবারো আমাদের সাইটে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক স্বাগতম জানাই। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে প্রতিবেদন লেখার নিয়ম এই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করা যাক।

বিভিন্ন প্রতিযোগীতা মূলক পরীক্ষা এছাড়াও বিভিন্ন বোর্ডের পরীক্ষায় বাংলা বিষয়ে প্রতিবেদন লিখতে হয়। কিভাবে একটি সহজ সরল সুন্দর প্রতিবেদন লিখতে হয় তা আমরা আজ আলোচনা করব । সম্পূর্ণ লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়লে আশাকরি তোমরাও খুব সহজেই একটি সুন্দর প্রতিবেদন লিখতে পারবে।

 

প্রতিবেদন কী?

প্রতিবেদন হল কোন নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে সঠিক তথ্য সমৃদ্ধ বিবরণ । ইংরেজিতে রিপোর্ট (Report) আর বাংলায় হল প্রতিবেদন । মূলত সংবাদপত্র বা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশের উপযোগী তথ্য সমৃদ্ধ সহজ সরল ভাষায় সংবাদ পরিবেশন করাকে বলা হয় প্রতিবেদন । সুনির্দিষ্ট নিয়ম মেনে সহজ সরল প্রাঞ্জল ভাষায় সঠিক তথ্য দিয়ে বিষয়টি সম্পর্কে পাঠক-কে একটি সুস্পষ্ট ধারনা দিতে হয়।

প্রতিবেদনের বৈশিষ্ট্য ও শ্রেণীবিভাগঃ

বিষয় ও চরিত্র অনুযায়ী প্রতিবেদন বিভিন্ন রকমের হতে পারে, নিম্নে প্রতিবেদনের কয়েকটি প্রকার দেওয়া হলোঃ

১. ঘটনা বা দুর্ঘটনা জনিত প্রতিবেদন ।
২. তদন্ত ভিত্তিক প্রতিবেদন ।
৩. খেলাধুলা, বিজ্ঞান প্রযুক্তি , পরিবেশ বিষয়ক প্রতিবেদন ।
৪. সাক্ষাৎকার ভিত্তিক প্রতিবেদন।
৫. রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক বিষয়ক প্রতিবেদন ।
৬. সম্পাদকীয় প্রতিবেদন ইত্যাদি

বিভিন্ন বোর্ডের পরীক্ষা এবং প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষায় যে সমস্ত প্রতিবেদন তোমাদের লিখতে হয় সেগুলোতে সাধারণত যে বিষয়ের ওপর প্রতিবেদন লিখতে বলা হয় তার একটি সংক্ষিপ্ত রূপ বা এক কথায় বলতে গেলে একটি সংক্ষিপ্ত তথ্য প্রশ্নে উল্লেখ করা হয়। সেই তথ্যের উপর নির্ভর করে প্রতিবেদনটি লিখতে হয় । এছাড়াও কোনও একটি নির্দিষ্ট বিষয় উল্লেখ করে প্রতিবেদন লিখতে বলা হয়।

ভালো মানের প্রতিবেদন লিখতে যা দরকার

একটি ভালো মানের প্রতিবেদন লিখতে হলে অনেক গুলো বিষয় মাথায় রাখতে হবে। নিম্নে সেগুলো বলা হলোঃ

১. প্রতিবেদন হবে সংক্ষিপ্ত এবং তথ্যপূর্ণ ।
২. সমস্ত তথ্য হবে নির্দিষ্ট, সুনির্বাচিত, নির্ভুল , সম্পূর্ণ এবং সহজ সরল ভাষায় ।
৩. প্রতিবেদনে একটি শিরোনাম থাকবে ।
৪. শিরোনাম এমন হবে যেন শিরোনাম দেখে পাঠকের কৌতূহল জাগে এবং প্রতিবেদনটি পড়ার ইচ্ছা হয় ।
৫. শিরোনামের সঙ্গে বিষয়বস্তুর মিল থাকা আবশ্যিক ।
৬. প্রতিবেদনে কখনই ভবিষ্যৎবাণী করা উচিৎ নয়।

প্রতিবেদনের গঠনঃ

প্রতিবেদন দেখতে কেমন হয় ? এর গঠন কেমন হয়? প্রতিবেদন নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম মেনে লিখতে হয়। নিম্নে প্রতিবেদনে অবশ্যিক যে বিষয়বস্তুর প্রয়োজন তা বলা হলোঃ

প্রতিবেদনের আবশ্যিক কিছু অংশঃ
১. শিরোনাম
২. প্রতিবেদকের নাম
৩. স্থান
৪. তারিখ

এই চারটি বিষয় একটি প্রতিবেদনে থাকতেই হবে। এগুলো ছাড়া প্রতিবেদনটি অসম্পূর্ণ থেকে যাবে । এগুলো একটি নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে লিখতে হবে । প্রতিটা বিষয় আলাদা আলাদা নিয়ম আছে লেখার। এসো নিয়ম গুলো শিখে নিই ।

শিরোনামঃ প্রতিবেদনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল শিরোনাম । শিরোনাম এমন হতে হবে যেন পাঠকের শিরোনাম দেখে প্রতিবেদনটি পড়ার প্রতি আগ্রহ তৈরি হয় । কেননা প্রতিবেদনের মধ্যে ঢুকবার ছাড়পত্র হল শিরোনাম বা হেডলাইন । কাজেই সংবাদের বিস্তৃত বিবরণ পড়বার আগেই পাঠকের চোখ যেন সিরনামে আকৃষ্ট হয় ।

প্রতিবেদকের নামঃ তোমরা যেকোনো সংবাদপত্রে একটু ভালোভাবে লক্ষ্য করলেই দেখতে পাবে সেখানে প্রতিবেদকের নাম লেখা থাকে। আবার কোন কোন প্রতিবেদনে সরাসরি প্রতিবেদকের নাম না দিয়ে সেখানে ” নিজস্ব প্রতিনিধি ” এরকম ধরনের কিছু লেখা হয় ।

স্থানঃ যে স্থান থেকে প্রতিবেদনটি লিখছে সেই স্থানের নাম অথবা ঘটনা স্থলের নাম ।

তারিখঃ তারিখ বিভিন্ন ভাবে লেখা যায় । তারিখ লেখার সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন তারিখ পুরোপুরি বাংলায় লেখা হয় । যেমনঃ-

১. ৫ই জুন ২০২২
২. ৫ জুন ২০২২

যতিচিহ্নঃ তারিখ লেখার পর কোলন চিহ্ন (ঃ) দিয়ে প্রতিবেদন লেখা শুরু করতে হবে।

তো প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আপনাদের কাছে আজকের এই পোস্ট টি ভালো লেগেছে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কিন্তু কমেন্ট করে জানাবেন। এবং আমাদের সাইটে এরকম আরো অনেক হেল্পফুল পোস্ট রয়েছে সেগুলো পড়তে চাইলে আমাদের সাইট টি একবার ভিজিট করুন। আর আজকের মতো এখানেই বিদায়, ভালো থাকবেন সুস্থ্য থাকবেন।

Shihab

নিজে যা জানি তা অন্যকে জানাতে ভালোবাসি আর্টিকেলের মাধ্যমে। বিভিন্ন ওয়েব সাইটে লেখালেখি করি.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button