Freelancing TipsOnline Earning Tips

কীভাবে ফাইবার এর গিগগুলো সার্চ রেজাল্টে উপরে নিয়ে আসবো

ফ্রিল্যান্সিং  করার জন্য সবচেয়ে  ভালো ওয়েবসাইট  হলো ফাইবার  এখানে ছোট ছোট  কাজ করে অনেক ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন  করা যায়।এখনে ৫ডলার থেকে ১০০০ ডলারের কাজ পাওয়া যায়। ফ্রিল্যান্সারদের  সবচেয়ে  সেরা চয়েস হচ্ছে ফাইবার।

অন্যান্য  ফ্রিল্যান্সার  ওয়েবসাইট  এর মত ফ্রিলান্সারদের বায়ার খুজতে হয় না। এখানে বায়ার আপনাকে খুজবে।ফাইবার একটি দোকানের  মতো। দোকানে পণ্যসামগ্রী  সাজিয়ে বসে থাকে আর ক্রেতা   যেয়ে পন্য ক্র‍য় করে ঠিক তেমটি ফাইবারে বায়ার তার প্রয়োজন  মত ফ্রিলান্সার  খুজে নেয়।

ফাইবার গিগ কি?

গিগ হলো আপনার অফার করা একটি সার্ভিস এর নাম। প্রাথমিক ভাবে ফাইবার আপনার গিগটির মূল্য $৫ ডলারে অফার বা বিক্রি করছে কাস্টমারের / বায়ারের কাছে এবং আপনাকে গিগটি তৈরির সময় আপনার দেওয়া শর্ত অনুসারে সম্পন্ন করতে হবে।

ফাইবারে কাজ করতে হলে ফাইবার গিগ তৈরি করে বায়ারদের সামনে উপস্থাপন  করতে হয়।আপনার গিগ পছন্দ  হলেই বায়ার আপনাকে কাজ দিবে।কিন্তু সমস্যা হচ্ছে ফাইবারে অনেক বেশি গিগ আছে যার মধ্য  থেকে আপনার গিগটি যদি সার্চ রেজাল্ট  এর প্রথম  পাতায় না আসে তাহলে আপনি কাজ না পাবার সম্ভাবনা  অনেক বেশি কারন বায়ার তার কাজ রিলেটেড  ফ্রিলান্সার  খুজে  পাওয়ার জন্য সার্চ করে থাকবে সেখানে প্রথম পাথায় অনেক ফ্রিল্যান্সার  পেয়ে যাবে তাহলে পরের পাতায় কেনো যাবে। ফলে আপনার কাজ পাওয়ার  সম্ভাবনা  অনেক কমে যাবে।

কীভাবে  ফাইবার  এর গিগগুলো সার্চ রেজাল্টে উপরে নিয়ে আসা যায়?

ফাইভার গিগ র‍্যাংকিং বুলেট টিপস । Fiverr Gig Ranking 2021

  • আপনার ফাইবার গিগ সার্চ রেজাল্ট  এর প্রথম  পাতায়  নিয়ে আসতে হলে আপনি সুন্দর এবং পরিচ্ছন্ গিগ তৈরি করুন ।একটা গিগ সম্পর্কিত সুন্দর টাইটেল দিন ।
  • ফাইবার গিগ তৈরির পর গিগ সম্পর্কে একটা নিজের তৈরি করা ভিডিও দিন। অন্যের ভিডিও  দেওয়া থেকে বিরত থাকবেন। ফাইবার গিগ ভিডিও সংযুক্ত গিগ গুলো বেশি বেশি ভিউ হয় । এতে করে আপনার গিগ র্যাঙ্কিংয়ে প্রথম পাতায় আসতে সাহায্য করবে ।
  • ফাইবার গিগ পিকচার গুলো এস ই ও করে নিন না পারলে ইউ টিউব থেকে টিউটোরিয়াল দেখে নিন । তাছাড়া  আমাদের ওয়েবসাইট  Shoptips24.com এর সাথেও থাকতে পারেন। খুব শিগ্রি  ফাইবার গিগ এস ই ও নিয়ে আরটিকেল  লিখবো।
  • আপনার ফাইবার  গিগ র্যাঙ্কিংয়ে প্রথম পাতায় আসতে সোসাল মিডিয়া মার্কেটিং শুরু করতে পারেন তাতে আপনার গিগ ভিজিটর বারবে ।
  • আপনার ফাইবার  গিগ মারকেটিং  এর ক্ষেত্রে  আমেরিকা, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এই দেশগুলোর মানুষের মাঝে থেকে যদি গিগ মার্কেটিং করা যায় তাহলে সেল আসবে।
  • ফাইবার  গিগ মারকেটিং  এর  প্রথম পদক্ষেপ হচ্ছে টুইটার মার্কেটিং , লিংকটইন মার্কেটিং, পিনটারেস্ট মার্কেটিং ।

এখন বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, অনেক ফ্রিল্যান্সার  টুইটারে প্রোফাইল খুলেই শুধু গিগের লিংক দিলেন, কাজ হবে?
আরে ভাই আপনাকে সেখানে কয়জন চিনে? আপনার লিংকে মানুষ কেনো ঢুকবে? কোন লাভে?আগে নিজেকে সেখানে স্থান করে নিতে হবে। তারপর আস্তে আস্তে মার্কেটিং শুরু করতে হবে। এভাবে কয়েক মাস কাজ করার পর দেখবেন আপনি একটি ভালো পজিশনে চলে গেছেন।

Fiverr এ কি কি কাজ পাওয়া যায়

ফাইবারের সাধারণত অনেক ধরণের কাজ  থাকে।তার মধ্যে যে কাজ গুলো বেশী থাকে সেগুলো তুলে ধরলামঃ
১. Virtual Assistant
২. SEO optimization
৩. Marketing
৪. Programming
৫. Web design
৬. Advertising
৭. Palm reading
৮. Transcription
৯. Video Editing
১০. Article/content writing
১১. Editing and Proofreading
১২. Song writing
১৩. Poetry

সর্বোপরি আপনাকে ভালো কাজ জানতে হবে । ফ্রিল্যান্সিং  জগতে আপনি কাজ না জানলে কিছুই করতে পারবেন না।আপনি মারকেটিং  করে আপনার ফাইবার  গিগ  সার্চ রেজাল্ট এর প্রথম পাতায় নিয়ে আসতে  পারবেন।কিন্তু কাজ না পারলেতো আপনার নেগেটিভ  রিভিউ  চলে আসবে।তারপর আর কাজ পাওয়ার কোনো  সম্ভাবনা  থাকবে না।শুধু সম্ভাবনাই না ফাইবার  সার্চ রেজাল্ট  এ আপনার গিগ চলে আসলেও তা আস্তে আস্তে চলে যাবে।

আসা করি সবার একটু হলেও উপকার হবে এই পোস্টটির মাধ্যমে। আপনাদের এই পোস্টটি ভালো লাগলে সুন্দর  একটি কমেন্ট করে আমাদের অনুপ্রানিত করুন।ফাইবার গিগ নিয়ে ট্রিপ্স এবং ট্রিক পেতে আমাদের সাইট ShopTips24.CoM নিয়মিত  ভিজিট করুন।
ধন্যবাদ  সম্পুর্ন  পোস্টটি পড়ার জন্য।

Shakil Ahamed

চেষ্টা করলে সফল অবশ্যই হওয়া যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button