যোহরের নামাজের নিয়ত

যোহরের নামাজের নিয়ত আরবি উচ্চারণ, বাংলা উচ্চারণ এবং বাংলা অর্থ সহ

আসসালামু আলাইকুম, প্রিয় ভাই ও বোনেরা আল্লাহর অশেষ দয়ায় আশা করি ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর অশেষ মায়ায় ভালো আছি। আজকে আপনাদের জন্য ইসলামিক পোস্ট নিয়ে হাজির হলাম। আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম যোহরের নামাজ আদায়ের নিয়ম সহ সব কিছু নিয়ে আলোচনা করবো।

একজন মুসলিম হিসেবে নামাজ আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং অপরিহার্য। জোহরের নামাজ দিনের দ্বিতীয় নামাজ। আজকে আমরা এই জোহরের নামাজ নিয়ে আলোচনা করবো। এই পোস্টে আপনি যোহরের নামাজের নিয়ম, জোহরের নামাজ পড়ার নিয়ম, যোহরের নামাজ কত রাকাত ও কি কি , যোহরের নামাজের নিয়ত, যোহরের নামাজের সময় , যোহরের নামাজের শেষে দুয়া এসব জানতে পারবেন।

আপনি যোহরের নামাজের নিয়ত, যোহরের নামাজের সময় , জোহরের নামাজের নিয়ম, জোহরের নামাজ পড়ার নিয়ম, জোহর নামাজের নিয়ম, যোহরের নামাজ আদায়ের নিয়ম ইত্যাদি জানার জন্য আমাদের ShopTips24.Com ওয়েবসাইটে আসছেন? তো দেরি না করে চলুন আমরা সম্পূর্ন আর্টিকেলটি দেখি।যোহরের নামাজ আদায়ের নিয়ম সহ সব কিছু নিয়ে আলোচনা করবো।

যোহর নামাজ ও নিয়ত

ফজর নামাজের নিয়ম ও নিয়ত এবং কিভাবে নিয়ত বাধতে হয় এ সম্পর্কে আজকে আরটিকেলে তাই সাজানো হয়েছে সুতরাং সম্পূর্ণ দেখুন কোথাও কোন ভুল ত্রুটি হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন এবং কমেন্ট বক্সে অবশ্যই জানাবেন।

যোহরের নামাজের নিয়ত

যোহর নামাজ কত রাকাত ও কি কি?

যোহর নামাজ ১২ রাকাত। যথাঃ

  • চার-রাকাত সুন্নত।
  • চার-রাকাত ফরজ।
  • দুই-রাকাত সুন্নত।
  • দুই-রাকাত নফল।

যোহরের চার রাকাত সুন্নত নামাজের নিয়ত সমূহ

যোহরের চার রাকাত সুন্নত নামাজের নিয়ত আরবি-উচ্চারন, বাংলা-উচ্চারন এবং বাংলা অর্থ সহ নিচে দেওয়া হলোঃ

আরবি-উচ্চারন:

نَوَيْتُ اَنْ اُصَلِّىَ لِلَّهِ تَعَا لَى اَرْبَعَ رَكْعَتِ صَلَوةِ الْظُهْرِسُنَّةُ رَسُوْلِ للَّهِ تَعَا لَى مُتَوَجِّهًا اِلَى جِهَةِ الْكَعْبَةِ الشَّرِ يْفَةِ اَللَّهُ اَكْبَرُ

বাংলা-উচ্চারন:

নাওয়াইতুয়ান উসালিয়া-লিল্লাহি তা’আলা আরবায়া রাকাআতি ছালাতিল জোহরে সুন্নাতু রাসূলিল্লাহি তা’য়াল মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আকবর।

বাংলা অর্থ:

যোহরের চার রাকাত সুন্নত নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে কিবলামুখী হয়ে নিয়্যত করলাম, আল্লাহু আকবার।

যোহরের চার রাকাত ফরজ নামাজের নিয়ত সমূহ

যোহর চার-রাকাত ফরজ নামাজের নিয়ত আরবি-উচ্চারন, বাংলা-উচ্চারন এবং বাংলা অর্থ সহ নিচে দেওয়া হলোঃ

আরবি-উচ্চারন:

نَوَيْتُ اَنْ اُصَلِّىَ لِلَّهِ تَعَا لَى اَرْبَعَ رَكْعَتِ صَلَوةِ الْظُهْرِ فَرْضُ اللَّهِ تَعَا لَى مُتَوَجِّهًا اِلَى جِهَةِ الْكَعْبَةِ الشَّرِ يْفَةِ اَللَّهُ اَكْبَرُ

বাংলা-উচ্চারন:

নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবায়া রাকাআতি ছালাতিজ যোহরে ফারদুল্লাহি তা’য়াল মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আকবর।

বিঃদ্রঃ-ঈমামের পিছনে পড়লে ফারদীল্লা-হি তাআ’লা বলার পরে ইকতাদাইতু বিহা-যাল ইমাম বলবে।

বাংলা অর্থ:

যোহরের চার রাকাত ফরজ নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে কিবলামুখী হয়ে নিয়্যত করলাম, আল্লাহু আকবার।

যোহরের দুই রাকাত সুন্নাত নামাজের নিয়ত সমূহ

যোহরের দুই রাকাত সুন্নাত নামাজের নিয়ত আরবি-উচ্চারন, বাংলা-উচ্চারন এবং বাংলা অর্থ সহ নিচে দেওয়া হলোঃ

আরবি-উচ্চারন:

نَوَيْتُ اَنْ اُصَلِّىَ لِلَّهِ تَعَا لَى رَكْعَتِ صَلَوةِ الْظُهْرِسُنَّةُ رَسُوْلِ للَّهِ تَعَا لَى مُتَوَجِّهًا اِلَى جِهَةِ الْكَعْبَةِ الشَّرِ يْفَةِ اَللَّهُ اَكْبَرُ

বাংলা-উচ্চারন:

নাওয়াইতুয়ান উসালিয়া-লিল্লাহি তা’আলা রাকাআতি ছালাতিজ যোহরে সুন্নাতু রাসূলিল্লাহি তা’য়াল মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আকবর।

বাংলা অর্থ:

যোহরের দুই রাকাত সুন্নত নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে কিবলামুখী হয়ে নিয়্যত করলাম,আল্লাহু আকবার।

যোহরের দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়ত সমূহ

যোহরের দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়ত আরবি-উচ্চারন, বাংলা-উচ্চারন এবং বাংলা অর্থ সহ নিচে দেওয়া হলোঃ

আরবি-উচ্চারন:

نَوَيْتُ اَنْ اُصَلِّىَ لِلَّهِ تَعَا لَى رَكْعَتِ صَلَوةِالْنَفْلِ مُتَوَجِّهًا اِلَى جِهَةِ الْكَعْبَةِ الشَّرِ يْفَةِ اَللَّهُ اَكْبَرُ

বাংলা-উচ্চারন:

নাওয়াইতুয়ান উসালিয়া-লিল্লাহি তা’আলা রাকাআতি ছালাতিল নফলে মোহাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

বাংলা অর্থ:

যোহরে দুই-রাকাত নফল নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে কিবলা মুখী হয়ে নিয়্যত করলাম,আল্লাহু আকবার।

যোহর নামাজের তাসবিহ:

উচ্চারণঃ হুয়াল আলহিয়্যাল আজীম।

অর্থঃ তিনি শ্রষ্ট্রেতর অতি মহান।

বিঃদ্রঃ-যোহর নামাজের শেষে ১০০ বার পাঠ করার তাসাবীহ্‌।

যোহর নামাজের সময়-সূচী:

যোহরঃ-মধ্যাহ্নে সূর্য তার সর্বোচ্চ স্থান থেকে কিছুটা হেলে পড়ার পর পরই নামাজ আদায় করে নেয়া ভাল। তবে সূর্যকিরণ যখন বেশ উত্তপ্ত থাকে, বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে একটু দেরিতে অর্থাৎ সূর্যের তেজ কিছুটা কমে এলে নামাজ আদায় করে নেয়ার অবকাশ রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষে আছরের সময় হওয়া পর্যন্ত নামাজ আদায় করে নেয়া যেতে পারে। যদি কোন কারণে ফরজের পূর্বে চার রাকাত সুন্নত আদায় করতে না পারে,তাহলে ফরজের পরে আদায় করে নিবে।

আমাদের শেষ কথা

আমরা যোহর নামাজের নিয়ত ও সময়সূচি নিয়ে আলোচনা করেছি সেই সাথে কিভাবে যোহর নামাজ পড়বেন। যোহর নামাজ পরার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে আজকের আরটিকেলে। মানুষ মাত্রই ভুল। আমাদেরও ভুল হতে পারে আজকের আর্টিকেলে যদি কোথাও কোন ভুল হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে ভুলটি সুধরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ রইল।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top