Mobile Review

ওয়ালটন কোম্পানির দারুণ একটা ফোন রিভিউ দেখে নিন

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলেই ভালো আছেন। আপনাদের কে ShopTips24.com এ স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের সাথে দারুন একটি ফোনের রিভিউ নিয়ে হাজির হয়ে গেছি।

আমাদের মধ্য অনেকেই হয়তো নতুন ফোন কেনার চেষ্টা করছি কিন্তু, কি ফোন কিনবো, বা কোনটা কিনবো না সেটা নিয়ে অনেক ঝামেলায় আছি। তো আজকে আমি আপনাদের ঝামেলা কিছুটা দূর করার জন্য ওয়ালটণ কোম্পনির কম দামি ভালো একটি ফোনের রিভিউ করতে যাচ্ছি। তো চলুন আর দেরি না করে আজকের ফোন রিভিউ টি শুরু করা যাক।

আমরা এই আরটিকেল থেকে যা যা জানবো

Info

Phone Name : Walton Primo HM6
Company : Walton
Model : Primo HM6
Storage : 32 GB
Ram : 2 GB
Official Price : 8,899 Taka Only

তো, এবার শুরু করি আজকের আর্টিকেল

Start

আজকে নিয়ে এলাম Walton এর একটি নতুন মোবাইলের সম্পুর্ন বাংলা রিভিউ নিয়ে। বাজারে প্রায়ই নতুন নতুন স্মার্টফোন রিলিজ হতে দেখা যায়। Walton প্রায়ই নতুন মোবাইল রিলিজ করে থাকে, এবার ও রিলিজ করেছে। তবে একেবারে নতুন তা নয়। ফোন টি ৩ মাস আগে লঞ্চ করেছে। আর ওয়ালটন হলো, বাংলাদেশি পণ্য, যা অনেকেই পছন্দ করেন। তো যারা ওয়ালটন কোম্পানির ফোন পছন্দ করেন এই ফোন টি তাদের জন্যই।

Introduction

Walton কোম্পনি বাজারে সদ্য রিলিজ করেছে Walton Primo HM6 মডেলের ফোনটি। এই ফোনটির দাম হচ্ছে ৮,৮৯৯ টাকা। ফোনটির বড় ব্যাটারি এর কারণে ফোনটি কিছুটা, ব্লাকি দেখা যায়। এবং আপনি হাতে নিলেও এটা বুঝতে পারবেন এটির থিকনেস ১০ মিলিমিটার আর এটির ওজন প্রায় ২১৫ গ্রাম। walton সাধারণত চায় কম দামে তাদের কাস্টমারকে ভালো মানের ফোন উপহার দিতে এবং সেই কাজটি তারা খুব ভালো ভাবেই করতে পারে। আর ওরা সেই কাজটি করেও আসছে। আর সেই সুবাদেই তারা আরো একটি নতুন ভালো ফোন আপনাদের সামনে নিয়ে আসলো। ফোন টি কম দামি ইউজারদের জন্য খুব ই ভালো।

Side specifications

ফোনটির ডান দিকে রয়েছে ভলিউম বাটন ও পাওয়ার বাটন। এবং বাম দিকে রয়েছে ডাবল সিম কার্ড স্লট ও ডেডিকেটেড মেমোরি স্লট। একেবারে নিচের দিকে রয়েছে মাইক্রো usb পোর্ট। সাথে রয়েছে মাইক্রোফোন ও স্পিকার । উপরের দিকে রয়েছে 3.5mm এর অডিও জ্যাক। পিছনে রয়েছে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর এবং ডাবল ক্যামেরা সম্বলিত ক্যামেরা রেয়ার। পিছনে গ্লসি ফিনিস ব্যবহার করা হয়েছে। এতে ডিসপ্লে হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ৬.৫২ ইঞ্চি এর hd+ রেজুলেশন এর LCD, IPS প্যানেল। এবং তে ব্যবহার করা হয়েছে 270 PPI প্যানেল। টাচ রেস্পন্স টি খুব ভালো দেয় এই ফোন টি। দিনের বেলায় বাড়ির বাইরে মানে আউটডোরে, ডিসপ্লে তে কিছুটা আলো স্বল্পতা দেখা যাবে। তবে ইনডোরে কালার গুলো ডিসপ্লে হিসেবে অনেকটা ভালো রাখা হয়েছে।

Box Content

ফোনটির বক্সে ফোনটির পাশাপাশি পেয়ে যাবেন হেডফোন,চার্জার,একটি ব্যাকপার্ট,সিম কার্ড ইনজেক্টর ও ডিসপ্লে প্রটেক্টর। আর কিছু ইউজার ম্যেনুলয়াল বুক ও কিছু কাগজ পত্র।

Operating System

ফোনটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে পেয়ে যাবেন Android ভার্সন ১০ go এডিশন। ফোনটিতে প্রসেসর হিসেবে, octore প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটিতে র্যাম হিসেবে রাখা হয়েছে ২ জিবি র‍্যাম এবং রম হিসেবে রয়েছে ৩২ জিবি এক্সটার্নাল স্টোরেজ।

ফোনটির পার্ফমেন্স এ কিছুটা ইস্যু পাবেন, মাল্টি টাস্কিং এর ক্ষেত্রে কিছুটা লেগ এর দেখা পাবেন, অ্যাপ ওপেনিং এ ও অনেক দুর্বলতা দেখা যায়।

Gaming

ফোনটিতে গেমিং এর খুব বেশি একটা ভালো পারফরম্যান্স পাবেন না৷ পাবজি গেমটি এই ফোনে খেলা যাবে না। তবে একেবারেই খেলা যাবে না এমন টা নয়। আপনি চাইলে একদম লো কোয়ালিটি তে খেলতে পারেন তবে বেশিক্ষন খেললে কিছুটা ল্যাগি ল্যাগি ভাব পাওয়া যায়। কিন্তু Temple run কিংবা asphalt nitro 9 এর মতো গেমগুলো অনায়াসে চলবে। এবং ফোন টি তে ফ্রি ফায়ার খেলতে পারবেন অনেক সহজেই। কোনো সমস্যা হবে না। তবে ঐ যে বললাম হ্যাভি ইউজে ল্যাগি ল্যাগি ভাব পাবেন।

সাধারণ এটি কোনো গেমিং ফোন না, এটাতে কম গ্রাফিক্স এর গেমগুলো খেলা গেলেও বেশি গ্রাফিক্স এর গেমগুলো খেলতে গেলে সমস্যায় পড়বেন। মুলত ফোনটির প্রসেসর অনেক দুর্বল হওয়ায় গেমিং এর মতো দিয়ে অনেকটা পিছিয়ে আছে। তাই এই ফোনটি গেমারদের জন্য না। তাই আপনি যদি একজন গেমার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি এই ফোন থেকেই দূরেই থাকুন। আর সাধারণ ইউজার হলে এই ফোন টি আপনার জন্যই।

Camera satement

ফোনটির Real এ দুটি ক্যামেরা রয়েছে প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৩ মেগাপিক্সেল এর আরেকটা সেন্সর। সামনে রাখা হয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল এর সেলফি ক্যামেরা। সব গুলো ক্যামেরা দিয়েই মোটামুটি ভালো একটা রেজাল্ট পাবেন। আর ফোন এর ক্যামেরা গুলো দিনের বেলায়, ভালো একটি শার্পনেস দিয়েছে৷ কিন্তু রাতের বেলায় আপনি নাইট মোড ব্যবহার করেও খুব ভালো একটা শার্পনেস পাবেন না। এই বাজেটের হিসেবে সব দিক দিয়েই ভালো আছে ফোন টি। এবং ক্যামেরা পার্ফমেন্স মোটামুটি পেয়ে যাবেন।

Battery

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 6000 mAh এর বিশাল ব্যাটারি। আর ফোন টির ব্যাক আপ পাওয়ার টা খুব ই ভালো, যা আপনাকে খুব ভালো একট ব্যক আপ দিবে। এবং আপনি এটাতে সন্তুষ্ট থাকবেন। আপনি যদি হেভি ইউজার ও হয়ে থাকেন তবুও ২দিনের মতো ব্যাটারি ব্যাকআপ পেয়ে যাবেন সাধারণ ইউজার হলে ৩-৫ দিন ব্যাকআপ পাবেন। এছাড়াও ফোন টির বক্সের মধ্যে পেয়ে যাবেন ১০ ওয়াটের চার্জার, এটি দিয়ে ফুল চার্জ করতে ৪ ঘন্টার মতো সময় লাগবে।

শেষ কথা

আপনি যদি একজন হেভি গেমার হন তাহলে আপনার এই ফোন টি থেকে দূরে থাকই শ্রেয়। তবে আপনি যদি রেগুলার ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে তাহলে আপনি এই ফোন টি কিনতে পারেন। তবে আমি আবারো বলছি, আপনি হ্যাভি ইউজার হলে এই ফোন টি কখনো কিনবেন না। আর গেমার রাও এর থেকে দূরেই থাকবেন। আর যারা শুধু ব্রাউজিং, এবং এর পাশাপাশি ছোট খাটো গেম খেলেন তাদের জন্য এই ফোন টি কিনতে কোনো সমস্যা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button