Wednesday, October 5, 2022

Redmi 10c ফোনের সম্পূর্ণ স্পেসিফিকশন ও বাংলা রিভিউ

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাদের কে আমাদের এই সাইটে আমার পক্ষ থেকে জানাই স্বাগতম। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে Redmi 10C এই ফোন ট এর সমস্ত বিষয় টি নিয়ে কথা বলবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করে দেওয়া যাক।

Redmi 10C ফোন টি রিলিজ করা হয়েছে এই বছরের মার্চের ২৩ তারিখ এ। নতুন রিলিজ হওয়া এই ফোন টি নিজের বাজেট এর তুলনায় এমন কিছু জিনিস অফার করছে যা আসলেই প্রসংসার যোগ্য। এই ফোন এর মূল আকর্ষণ হলো এতে রয়েছে বড় ডিসপ্লে, প্রসেসর সেকশনে থাকছে কোয়ালকাম স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ (SD 680)। এই সেম প্রসেসর কিন্তু ২৭ – ৩০ হাজার দাম এর ফোন গুলো তে আমরা দেখতে পাই।

তবে এই ফোন টি বাজেট এএ হিসাবে যে আমরা এতে এই প্রসেসর টি পাবো তা আসলেই অনেক বড় একটি বিষয়। তবে আপনারা শুধু এতটুকু দেখেই এই ফোন কিনতে যাবেন না। পুরো রিভিউ টি দেখুন এর পর যদি ভালো লাগে তবেই কিনবেন। কেননা সকল জিনিসের ভালো ও খারাপ ২ টা দিক ই আছে। তো এই ফোনের সকল ভালো ও খারাপ দিকে পোস্ট এ আলোচনা করবো। তো চলুন দেখে নেওয়া যাক Redmi 10C ফোন টি এর সম্পূর্ণ রিভিউ।

আমরা এই আরটিকেল থেকে যা যা জানবো

Redmi 10c Price In Bangladesh

আজকে বেশি অপেক্ষা করাবো না। আর্টিকেল এর শুরুতেই ফোন টি এর দাম আপনাদের জানিয়ে দেই। এই ফোন টি ২ টি ভ্যারিয়েন্ট এ লঞ্চ করা হয়েছে, ৪ – ৬৪ জিবি ও ৪ – ১২৮ জিবি এই দুই ভ্যারিয়েন্ট এ। তবে আমার মনে হয় ৪ – ১২৮ না দিয়ে ৬ – ১২৮ দিলে ব্যাপার টা আরেকটু ভালো হতো।

তো যাই হোক চলুন যেনে নেওয়া যাক এই দুই ভ্যারিয়েন্ট এর দাম গুলো,

১. ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজ এর দাম রাখা হয়েছে ১২,৯৯৯ টাকা। মানে অলমোস্ট ১৩ হাজার টাকা।

২. ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ এর দাম রাখা হয়েছে ১৩,৯৯৯ টাকা। মানে বলা যায় প্রায় ১৪ হাজার টাকা।

তো যেনে গেলাম এই ফোনের দুই ভ্যারিয়েন্ট এর দাম। তো চলুন এবার এর বাকি স্পেসিফিকশন গুলো জেনে নিই।

Performance

প্রথমেই কথা বলি এর মূল আকর্ষন মানে প্রসেসর সেকশন নিয়ে। এতে আপনারা প্রসেসর হিসেবে পাচ্ছেন SD 680, যা একটি লেটেস্ট প্রসেসর এবং এটি 6 nm এর একটি প্রসেসর। আমি যখন এর দাম এবং প্রসেসর এর কথা শুনলাম তখন অবাক না হয়ে পারলাম না।

কারণ এর আগে এর অনেক গুলো রিভিউ করেছি আমি৷ তাতে SD 680 প্রসেসর এর ফোন এর রিভিউ ও করেছি। সে ফোন গুলো এর দাম ছিলো প্রায় ২৭ – ২৮ হাজার টাকা এর মতো। কিন্তু এই Redmi 10c তে যে ১৩ – ১৪ হাজার টাকাতে এই প্রসেসর দিবে আমি ভাবতেও পারি নি।

যাই হোক এই প্রসেসর অনেক টা ভালো প্রসেসর যা আপনারা হয়তো জানেন। আর এই প্রসেসর টি কিন্তু এই ফোনের সাথে ঠিক ঠাক মিল রেখে বেশ ভালোই পার্ফরমেন্স দিবে আপনাকে। এই ফোন দেশের বাজারে ২ টি ভ্যারিয়েন্ট এ লঞ্চ হয়েছে। যা আগেই বলেছি আবারো বলছি। এটা ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজ এবং ৪ জিবি র‍্যান ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ এই ২ টি ভ্যারিয়েন্ট এ লঞ্চ করা হয়েছে।

এতে আপনারা অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে পাচ্ছেন এন্ড্রয়েড ১১ এবং এটাকে রান করছে MUI 13. এতে এপ ওপেন, ক্লোস ইত্যাদি ঠিক ঠাক মতোই হবে এবং ল্যাগ এর দেখা আপনি পাবেন না বললেই চলে। এক সাথে ৫-৬ টা এপ নিয়েও কাজ করতে পারবেন। তবে এপ গুলো বেশি ভাড়ী মানে বেশি এমবি এর হলে একটু সমস্যা হতেই পারে। আর এতে MUI ঘটিত কোনো সমস্যাও পাবেন না।

Gaming

এই ফোনে আপনারা যেহেতু অনেক ভালো একটি প্রসেসর পাচ্ছেন তাই গেমিং এ এই বাজেট এর অন্য ফোন গুলো এর থেকে কিছুটা হলেও ভালো পার্ফর্মেন্স পাবেন তা বলার বাইরে রাখে না। তো যাই হোক, এই ফোন এ পাবজি গেমটি আপনারা সর্বোচ্চ ব্যালান্স কোয়ালিটি তে রেখে খেলতে পারবেন।

এতে অনেক্ষণ ধরে গেম প্লে করা যায়, যাতে খুব বেশি ল্যাগ এ দেখা পাওয়া যায় না। ফ্রেম ড্রপ বা একেবারে আটকে যাবে, এমন কোনো সমস্যা পাওয়া যাবে না এই ফোন এ। এতে আপনারা ব্যাটারি ব্যাক আপ ও ভালো পাবেন এরই সাথে ফোন খুব বেশি একটা গরম ও হবে না।

এই ফোন এ কল অফ ডিউটি গেম টি ও বেশ ভালোই খেলা যায়। এই গেমটি ম্যাক্স ভেরি হাই কোয়ালিটি সর্বোচ্চ ভালো ভাবে খেলা যায়৷ আর এই গেম পাবজি এর থেকে একটু ভালোই খেলা যাবে।

Camera

ফোন টি এর রেয়ারে ২ টি ক্যামেরা রয়েছে। এর মূল সেন্সর টি ৫০ মেগা পিক্সেল এর এবং এর সাথে পাওয়া যাবে ২ মেগা পিক্সেল এর ডেপথ সেন্সর। এবং এর ফন্ট এ পাওয়া যায় ৫ মেগা পিক্সেল এর একটি শুটার। এর মেইন শুটার টি স্যামসাং GN 1 এর সেন্সর।

এই ৩ টি ক্যামেরা দিয়েই খুব ভালো ছবি তুলতে পারবেন। তবে এটে শার্পনেস খুব বেশি ধরে রাখতে পারে না। মানে বাজেট অনুযায়ী মানিয়ে নেওয়ার মতো ক্যামেরা পাবেন বলে আশা করা যায়।

Display

এই ফোন টা অনেকেই কিনবে শুধু মাত্র এর ডিসপ্লে এর জন্য। সাইজে অনেক বড় একটি ডিসপ্লে এটার। এর ডিসপ্লে সাইজ ৬.৭১ ইঞ্চি। বিশাল বড় একটি ডিসপ্লে পাচ্ছেন এই ফোন এ। ফোন টা বড় হওয়ার এটা হালকা পাতলা হওয়া সত্ত্বেও অনেকের কাছে এটা একটু মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে।

এটা আইপিএস এলসিডি প্যানেল এর একটি ডিসপ্লে। এবং এতে ৬০ হার্জ রিফ্রেস রেট পাবেন। ডিসপ্লে এর টপ এ আছে ইউ শেইপ নস৷ তবে এটা সাইডে থাকলে আরো ভালো দেখাতো ডিসপ্লে টি। এর পিপিয়াই ডেনসিটি হলো ২৬৪। এই ডিসপ্লে ইন্ডোর এ ভালো পাওয়া গেলেও বাইরে মানে ডিরেক্ট সান লাইট এ একটু সমস্যা করবে।

এর টাচ রেসপন্স অনেক ভালো পাওয়া যাবে। এবং এর ডিসপ্লে কে প্রটেকশন করছে কর্ণিং গোরিলা গ্লাস। তবে কোন গোরিলা গ্লাস মানে কোন মডেল প্রটেকশন করছে তা জানা যায় নি।

Battery

এতে ব্যাটারি হিসেবে পাওয়া যাবে ৫০০০ mAh এর একটি বিশাল ব্যাটারি। আর এত বড় ব্যাটারি থাকা সত্বেও এটা বেশ স্লিম একটি ফোন। এই ফোন কে চার্জ করার জন্য বক্স এ পাওয়া যাবে ১৮ ওয়ার্ট এর একটি চার্জার। যা দিয়ে ফোন কে ফুল চার্জ করতে সময় লাগবে প্রায় ২ ঘন্টা এর মতো।

তবে এর ব্যাটারি ব্যাক আপ আবার খুব ভালো। এটা হ্যাভি ইউজার দের কে ১ দিন এর মতো ব্যাক আপ আর হ্যাভি – নরমাল ইউজার দের জন্য ২ দিন এর মতো ব্যাক আপ দিবে।

তো বন্ধুরা আশা করি পোস্ট টি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। ভালো লেগে থাকলে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর এরকম পোস্ট পেতে প্রতিদিন ভিজিট করতে থাকুন আমাদের এই সাইট টি। আবার দেখা হবে পরবর্তী কোনো পোস্ট এ। সে পর্যন্ত সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেয।

Shihab
Shihabhttps://skytube.ml
নিজে যা জানি তা অন্যকে জানাতে ভালোবাসি আর্টিকেলের মাধ্যমে। বিভিন্ন ওয়েব সাইটে লেখালেখি করি.
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here