মোবাইলের ইন্টারনেট স্পীড বৃদ্ধি করার ৬ টি দারুন টিপস

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাদের কে আমাদের এই সাইটে আমার পক্ষ থেকে জানাই স্বাগতম। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে মোবাইল ফোনের ইন্টারনেট এর স্পীড কিভাবে বৃদ্ধি করবেন সেই বিষয় টি নিয়ে কথা বলবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করে দেওয়া যাক।

 

মোবাইলের ইন্টারনেট এর স্পীড বৃদ্ধি করার কয়েকটি টিপস

ইন্টারনেটের কল্যাণে এখন হাতের মুঠোয় বিশ্ব। এরই ধারাবাহিকতায় ডিজিটাল বিশ্বে বাংলাদেশ সামিল হয়েছে অনেক আগেই। ইতোমধ্যে মোবাইল নেটওয়ার্ক ৫ম প্রজন্মের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে দেশ। তবে মোবাইল ইন্টারনেটের স্পিডের সমস্যা এখনো পিছু ছাড়েনি ব্যবহারকারীদের।

এখন যেহেতু বেশিরভাগ কাজই করতে হচ্ছে অনলাইনে। তাই মোবাইল ডেটা ব্যবহারকারীদের হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ পাঠাতে, ইউটিউব ভিডিও দেখতে, কোনো ওয়েবসাইট খুলতে গিয়ে কিংবা কোনো কিছু ডাউনলোড করার সময় বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

 

আরো পড়ুনঃ গুগল ডকস কি? এর ব্যবহারের নিয়ম ও সুবিধা সম্পর্কে জানুন।

 

মোবাইল ইন্টারনেটের স্পিড বাড়াতে বেশি দামেও কিনছেন ডাটা প্যাক। তারপরও সমাধান মিলছে না। যখনই কাজ করতে যাচ্ছেন তখনই ঝামেলায় পড়ছেন। তবে সহজ কিছু কৌশল অবলম্বন করে মোবাইলের ইন্টারনেট স্পিড বাড়াতে পারবেন। চলুন নিম্নে জেনে নেওয়া যাক কয়েকটি উপায় ফোনের স্পীড বৃদ্ধি করারঃ

 

ফোনের ক্যাশ ডাটা ক্লিয়ার করুন

শুরুতেই আপনার ফোনের ক্যাশ ডেটা সাফ করুন। এই কাজটি মাসে অন্তত একবার করুন। ক্যাশে ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজের জায়গা বাড়ায়। তবে এটি আপনার মোবাইল ইন্টারনেটের গতিও ধীর করতে পারে। তাই দীর্ঘদিন ধরে ক্যাশে ডেটা ক্লিয়ার করুন।

 

ব্যাকগ্রাউন্ডে চলা অ্যাপস গুলো কে বন্ধ করে দিন

ফেসবুক, টুইটার এবং ইন্সটাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপগুলি সর্বাধিক ডেটা ব্যবহার করে। ফলে এগুলি ইন্টারনেট স্পিড কমিয়ে দেয়। তাই, আপনি আপনার মোবাইলের সেটিংস থেকে অ্যাপ সেটিংসে গিয়ে, অটো-প্লে এবং অটো-ডাউনলোড অপশন দুটিকে ডিজাবেল বা অফ করে দিন। এরপর, ব্রাউজারে গিয়ে, ডেটা সেভ মোড এনাবেল বা অন করে দিন। এবার আপনার মোবাইলের ইন্টারনেট স্পিড অনেকাংশে বেড়ে যাবে।

 

অটো- আপডেট অপশন বন্ধ করে দিন

অটো- আপডেট অপশন এনাবেল বা অন থাকলেও কিন্তু ইন্টারনেট স্পিড কমে যেতে পারে। কেননা, ইন্টারনেট চালু করলেই গুগল-প্লে অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট ডাউনলোড করতে শুরু করে দেয়। ফলে ডাউনলোডের জন্য অনেকটা ডেটা খরচ হয়ে যাওয়ার দরুন ইন্টারনেট স্পিড কমে যায়। তাই হাই-স্পিড ইন্টারনেট পেতে অটো-আপডেট মোডটিকে বন্ধ করে রাখুন।

 

নেটওয়ার্ক সেটিংস চেঞ্জ করুন

অনেক সময় নেটওয়ার্ক সেটিংসের সমস্যা হলে ইন্টারনেটের স্পিড কমিয়ে দেয়। এটিকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে মোবাইল নেটওয়ার্ক বা কানেক্টিভিটি সেটিংসে যান। এরপর অপারেটর সেকশনে গিয়ে “অটো সিলেক্ট” অপশনটি বন্ধ করে ম্যানুয়ালি অপারেটর বেছে নিন এবং নেটওয়ার্ক সেট আপ করুন। এ ছাড়াও খুব বেশি সমস্যা হলে একবার স্মার্টফোনটি রিস্টার্ট করে নিতে পারেন।

 

APN সেটিংস ঠিক করুন

APN মানে Access Point Network -এর সেটিংস ঠিক আছে কিনা তা অবশ্যই দেখে নিন। কারণ, এটির সেটিংস যদি ভুল থাকে তবে তার প্রভাবে ইন্টারনেট স্পিড কমে যাবে। প্রসঙ্গত, আপনি ম্যানুয়ালিও APN -এর সেটিংসকে ঠিক করতে পারেন। এছাড়া কাস্টমার কেয়ারে কল করেও সঠিক APN সেটিং করতে পারেন।

 

মোবাইল নেটওয়ার্ক অপশন বদলে দিন

মোবাইল ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর জন্য আপনি নেটওয়ার্ক অপশন বদলাতে পারেন। এরজন্য ডিভাইস সেটিংস -এ চলে যান। সেখানে, “Network Settings” নামক একটি বিকল্প দেখতে পারবেন। সেটিতে ট্যাপ করুন। এরপর, ❝Preferred type of network❞ লেখা বিকল্পটিতে ট্যাপ করুন। এবার সেখানে থাকা 4G / LTE অপশনটি বেছে নিন।

 

তো বন্ধুরা আশা করি পোস্ট টি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। ভালো লেগে থাকলে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর এরকম পোস্ট পেতে প্রতিদিন ভিজিট করতে থাকুন আমাদের এই সাইট টি। আবার দেখা হবে পরবর্তী কোনো পোস্ট এ। সে পর্যন্ত সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেয।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top