Tech News

পেওনিয়ার একাউন্ট থেকে টাকা আনুন বিকাশে একদম সহজ উপায়ে

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাদের কে আমাদের এই সাইটে আমার পক্ষ থেকে জানাই স্বাগতম। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে কিভাবে পেওনিয়ার থেকে টাকা বিকাশে আনবেন সে বিষয় টি নিয়ে কথা বলবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করে দেওয়া যাক।

পেওনিয়ার থেকে টাকা বিকাশে আনুন

দেশের অসংখ্য ফ্রিল্যান্সার এর কথা চিন্তা করে বিকাশে যুক্ত হলো পেওনিয়ার থেকে টাকা আনার ফিচার। মূলত বিকাশ রেমিট্যান্স অপশনের মাধ্যমে পেওনিয়ার একাউন্ট বিকাশ একাউন্টের সাথে লিংক করে পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনা যাবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত।

প্রথমে কথা বলা যাক পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার সুবিধা নিয়ে। ব্যাংকের মাধ্যমে বা এটিএম বুথে পেওনিয়ার থেকে টাকা না এনে কেনো ব্যবহার করবেন বিকাশ, সেটি একটি প্রশ্ন হতে পারে। পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার অনেক সুবিধা রয়েছে, তার থেকে নিচে কয়েকটি দেওয়া হলো।

পেওনিয়ার থেকে টাকা বিকাশে আনার সুবিধা

১. পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনলে ২% ক্যাশব্যাক রিওয়ার্ড দেওয়া হবে যা পেওনিয়ার চার্জ হিসেবে কেটে নিবে। অর্থাৎ কোনো ধরনের বাড়তি ফি লাগছেনা পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার ক্ষেত্রে (সীমিত সময়ের অফার)।

২. সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে বিকাশে টাকা আনা যাবে।

৩. পেওনিয়ার থেকে মুহুর্তের মধ্যে টাকা বিকাশ একাউন্টে যুক্ত হবে (ব্যাংকের ক্ষেত্রে অনেক সময় কয়েকদিন সময় লাগে)।

৪. গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দ্রুত পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার সুবিধার ফলে কার্ড যারা ব্যবহার করেন না তারা টাকা তুলতে পারবেন।

৫. পেওনিয়ার থেকে কার্ডে ক্যাশ আউটের চেয়ে বিকাশের ক্যাশ আউট ফি তুলনামূলকভাবে অনেক কম।

ইন্টারন্যাশনাল রেমিট্যান্স লিমিট

এবার কথা হচ্ছে এই ইন্টারন্যাশনাল রেমিট্যান্স এর কোনো ধরনের লিমিট আছে কিনা। হ্যাঁ, পেওনিয়ার থেকে বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে বিকাশে টাকা আনার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট লিমিট রয়েছে, নিম্নে তা দেওয়া হলো।

১. প্রতি দিন সর্বোচ্চ ১০বার ও ১,২৫,০০০টাকা
২. প্রতি মাসে সর্বোচ্চ ৫০বার ও ৪,৫০,০০০টাকা

পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম

পেওনিয়ার থেকে বিকাশে টাকা আনার ক্ষেত্রে ইতিমধ্যে একটি বিকাশ একাউন্ট ও একটি পেওনিয়ার একাউন্ট থাকা জরুরি। আপনার যদি কোন পেওনিয়ার একাউন্ট না থাকে তাহলে নিচের বলা নিয়ম অনুসরণ করে পেওনিয়ার একাউন্ট খুলে নিন

আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশ থেকে পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম।

পেওনিয়ার একাউন্ট খুলতে

১. পেওনিয়ার একাউন্ট খুলতে পেওনিয়ার পরিচালিত রেজিস্ট্রেশন পেইজে প্রবেশ করুন (বিকাশ অ্যাপ থেকে রেজিস্ট্রেশন পেইজে প্রবেশ করা যাবে)

২. বিকাশ এপ থেকে পেওনিয়ার এর রেজিস্ট্রেশন পেজে যেতে Remittance > Payoneer > Create Payoneer Account with bKash অপশনে প্রবেশ করুন।

৩. রেজিষ্ট্রেশন পেজে গিয়ে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য প্রদান করে রেজিস্টেশন সম্পন্ন করুন, ভুল তথ্য প্রদানে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ব্যর্থ হতে পারে।

৪. বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে খোলা একাউন্ট একটিভ হতে সময় লাগবে অন্তত ৩ কর্মদিবস। ৩ কর্মদিবসের মধ্যে পেওনিয়ার টিম রিভিউ করে একাউন্টের রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করবে।

পেওনয়ার থেকে টাকা বিকাশে আনার নিয়ম

একাউন্ট খোলা সম্পন্ন হয়ে গেলে এবার পেওনিয়ার ও বিকাশ একাউন্ট লিংক করতে হবে। পেওনিয়ার এর সাথে বিকাশ অ্যাকাউন্ট লিংক করতেঃ

১. বিকাশ অ্যাপে প্রবেশ করুন ও Remittance আইকনে ট্যাপ করে Payoneer সিলেক্ট করুন
এরপর “Link my Payoneer Account” অপশন সিলেক্ট করুন।

২. প্রয়োজনীয় তথ্যসমূহ সঠিকভাবে প্রদান করুন
উল্লেখ্য যে পেওনিয়ার একাউন্টে রেজিস্টার্ড নাম ও বিকাশ একাউন্টের নাম একই হতে হবে।

৩. একাউন্ট লিংকিং এর সময়ে মোবাইলে আসা ওটিপি কোড প্রদান করুন, এই কোড কারো সাথে শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন।

৪. উল্লেখিত প্রক্রিয়া সঠিকভাবে অনুসরণ করলে পেওনিয়ার একাউন্ট ও বিকাশ একাউন্ট লিংক হয়ে যাবে। একাউন্ট লিংকিং সম্পন্ন হলে তা নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানতে পারবেন।

৫. এবার বিকাশ অ্যাপে পেওনিয়ার এর মাধ্যমে বিদেশী কারেন্সি আনতে পারবেন।

তো বন্ধুরা আশা করি পোস্ট টি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। ভালো লেগে থাকলে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর এরকম পোস্ট পেতে প্রতিদিন ভিজিট করতে থাকুন আমাদের এই সাইট টি। আবার দেখা হবে পরবর্তী কোনো পোস্ট এ। সে পর্যন্ত সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেয।

Shihab

নিজে যা জানি তা অন্যকে জানাতে ভালোবাসি আর্টিকেলের মাধ্যমে। বিভিন্ন ওয়েব সাইটে লেখালেখি করি.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button