Tech NewsTrend News

কম্পিউটার কি ?আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে?

কম্পিউটার কি ? আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে? আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে ? বর্তমানে কম্পিউটার হলো আমাদের নিত্য ব্যবহার এর একটি যন্ত্র। এটিকে প্রথমে শুধু গণনার করার জন্য মূলত তৈরি করা হয়। কিন্তু দিনে দিনে উন্নত হতে হতে এখন এটি শুধু গণনার কাজেই নয়, মানুষের দৈনন্দিন সকল কাজে এটি নানা ভাবে ব্যবহার হয়ে থাকে।

আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কেন, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?তিনি কোন দেশের নাগরিক?, কম্পিউটারের জনক কে কেন তাকে জনক বলা হয়, আধুনিক কম্পিউটারের আবিষ্কারক কে, পার্সোনাল কম্পিউটারের জনক কে, সুপার কম্পিউটারের জনক কে, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, সফটওয়্যার এর জনক কে, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? , আধুনিক কম্পিউটার কি, Adhunik computer er jonok ke, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?তিনি কোন দেশের নাগরিক?, আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে, সফটওয়্যার এর জনক কে, আধুনিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে, চার্লস ব্যাবেজ কত সালে কম্পিউটার আবিষ্কার করেন, কম্পিউটারের জনক কে কেন তাকে জনক, বলা হয়, সুপার কম্পিউটারের জনক কে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের, জনক বলা হয় কেন, কে কি আবিষ্কার করেন, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? *, সফটওয়্যার কে আবিষ্কার করেন, আধুনিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কেন, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, Adhunik computer er jonok ke, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? *, চার্লস ব্যাবেজ কত সালে কম্পিউটার আবিষ্কার করেন, কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর জনক কে, মিনি কম্পিউটারের জনক কে, সফটওয়্যার এর জনক কে, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?,তিনি কোন দেশের নাগরিক?, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে, সুপার কম্পিউটারের জনক কে,

এর থেকেও মজার ব্যাপার হলো আগে কম্পিউটার শব্দ দ্বারা কোনো যন্ত্রকে বুঝাতো না, যারা হিসাবে নিকাশ এর কাজ করতো মূলত তাদেরই বুঝাতো। মানুষ কোনো বড় কাজই একলা সম্পূর্ণ করতে সক্ষম নয়, দলগত ভাবেই বড় কাজ গুলো করতে সক্ষম হয়। তেমনি শুধু একজন নয়, অনেকের অবদানেই তৈরী এই কম্পিউটার।

আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে?আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে ?

আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কেন, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?তিনি কোন দেশের নাগরিক?, কম্পিউটারের জনক কে কেন তাকে জনক বলা হয়, আধুনিক কম্পিউটারের আবিষ্কারক কে, পার্সোনাল কম্পিউটারের জনক কে, সুপার কম্পিউটারের জনক কে, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, সফটওয়্যার এর জনক কে, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? , আধুনিক কম্পিউটার কি, Adhunik computer er jonok ke, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?তিনি কোন দেশের নাগরিক?, আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কাকে, সফটওয়্যার এর জনক কে, আধুনিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে, চার্লস ব্যাবেজ কত সালে কম্পিউটার আবিষ্কার করেন, কম্পিউটারের জনক কে কেন তাকে জনক, বলা হয়, সুপার কম্পিউটারের জনক কে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের, জনক বলা হয় কেন, কে কি আবিষ্কার করেন, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? *, সফটওয়্যার কে আবিষ্কার করেন, আধুনিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে, জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয় কেন, কম্পিউটারের জনক কাকে বলা হয়, Adhunik computer er jonok ke, তাত্ত্বিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের জনক কে? *, চার্লস ব্যাবেজ কত সালে কম্পিউটার আবিষ্কার করেন, কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর জনক কে, মিনি কম্পিউটারের জনক কে, সফটওয়্যার এর জনক কে, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?,তিনি কোন দেশের নাগরিক?, আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে, সুপার কম্পিউটারের জনক কে,

অনেকেই বলে চালর্স ব্যাবেজ আধুনিক কম্পিউটার আবিষ্কার করেছেন। এটা মিথ্যা। তবে তিনি আধুনিক কম্পিউটার এর জন্য অ্যানালিটিকেল ইঞ্জিন নামের একটি ইঞ্জিন তৈরি করেন। কিন্তু তিনি মারা যাওয়ার কারণে তার জীবন দশায় পুরো কাজটি শেষ করতে পারেননি। অবশেষে জর্জ হাওয়ার্ড আইকেন নামক একজন বিজ্ঞানী চালর্স ব্যাবেজ এর তৈরিকৃত ইঞ্জিন ব্যবহার করে প্রথম ইলেকট্রিকেল কম্পিউটার MARK-1 তৈরি করেন। MARK -1 কম্পিউটারটির দৈর্ঘ ছিলো ৫০ ফুটেরও (১৫ মিটার) বেশি। এর যন্ত্রাংশ ছিলো প্রায় ৭,৬০,০০০ টির ও বেশি, কানেকশন ৩০,০০,০০০ টির ও বেশি, এবং তার গুলোর সম্মিলিত দৈর্ঘ দাঁড়াবে ৫ মাইলের ও বেশি । আরও পড়ুন : অনলাইন থেকে আয় করার সহজ উপায়

একে ম্যানহাটন প্রজেক্ট এর জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল। ১৯৩৯ সালেই বেল ল্যাবরেটরিতে বিজ্ঞানী জর্জ স্টিবিজ ‘The Complex Number Calculation (CNC) ” তৈরী করেন। ১৯৪০ সালে ডার্ট মাউথ কলেজে আয়োজিত অ্যামেরিকান ম্যাথমেটিক্যাল সোসাইটির সভায় তিনি এটি প্রদর্শন করেন। এটি ছিলো ইতিহাসে প্রথম দূর-নিয়ন্ত্রিত কম্পিউটিং। ১৯৪৬ সালে পেনসিলকভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন বিজ্ঞানী জন মার্কলি এবং জে প্রেসপার একটি “ENIAC(Electronic Numerical Integrator And Calculator) তৈরী করেন।

আরো পড়ুনঃ উইন্ডোজ কম্পিউটার এর কিবোর্ড শর্টকাট যা প্রত্যেকের জানা দরকার

এটিই ছিলো ইতিহাসের প্রথম প্রকৃত জেনারেল পারপাস,প্রোগ্রামেবল এবং ইলেকট্রনিক কম্পিউটার। ১৯৮১ সালে আইবিএম তাদের নিজস্ব প্রথম পারসোনাল কম্পিউটার (পিসি) বাজারে আনে। যার অফিসিয়াল নাম ছিলো IBM Model 5051, এর অপারেটিং সিস্টেম ছিলো Microsoft এর MS-DOS এবং প্রফেসর হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছিলো ইনটেলের ৪.৭৭ মেগাহার্জ ৪০৪৪ মাইক্রোপ্রসেসর। তবে কম্পিউটারে আধুনিকতার আলো এনেছেন বিশেষ করে উল্লেখ্যযোগ্য ” অ্যালেন ট্যুরিং”। যিনি কম্পিউটার এর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (Artificial Intelligent) ও কৃত্রিম জীবন (Artificial Life) তৈরি করেছে। আর আধুনিকতা মানেই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাধারণর্থে অর্থ হলো যে যন্ত্র নিজে নিজে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। কম্পিউটার ব্যাবেজ এর মাধ্যমেই সর্বসমক্ষে উঠে এসেছে। তাই তিনি কম্পিউটার এর জনক, এবং আধুনিক কম্পিউটার এর জনক “অ্যালেন ট্যুরিং”।

Shakil Ahamed

চেষ্টা করলে সফল অবশ্যই হওয়া যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button