E Service

হারানো সার্টিফিকেট তোলার নিয়ম – বাংলা ব্লগ

হারানো সার্টিফিকেট তোলার নিয়ম প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে থেকে পাশ করার পরে সার্টিফিকেট দেওয়া হয়। সার্টিফিকেট আমাদের দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন ধরনের কাজে প্রয়োজন হয়। বিশেষ করে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে সার্টিফিকেট বিভিন্ন চাকরি এবং প্রশাসনিক কাজে খুবই কাজে লাগে।

হারানো সার্টিফিকেট তোলার নিয়ম

এই সমস্ত কাছে আপনি শিক্ষা সার্টিফিকেট ছাড়া এগোতে পারবেন না। এছাড়া বিদেশে স্কলারশিপ নিয়ে পড়াশোনা করার জন্যও সার্টিফিকেট খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু অনেক সময় বিভিন্ন কারণে আমাদের সার্টিফিকেটগুলো হারিয়ে যায় বা নষ্ট হয়ে যায়। সার্টিফিকেট গুলো হারালে বা নষ্ট হলে আপনি শিক্ষাবোর্ড বরাবর বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর আবেদন করলে সার্টিফিকেট ফিরে পেতে পারেন ।হারানো সার্টিফিকেট তোলার নিয়ম সম্পর্কে  বিস্তারিত  জেনে নেয়া যাক|

আরও দেখতে পারেনঃ

ই টিন সার্টিফিকেট করার নিয়ম 2022

সার্টিফিকেট হারালে করণীয়


১. থানায় জিডি: আপনার সার্টিফিকেট যদি কোথাও হারিয়ে যায় বা নষ্ট হয়, সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার নিকটস্থ থানায় গিয়ে একটি সাধারণ জিডি করে রাখুন। জিডি করার পরে অবশ্যই সেই জিডির একটি কপি আপনার নিকট রাখবেন। কারণ পরবর্তীতে এই জিডির কপি আপনাকে শিক্ষা বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে জমা দিতে হবে।সার্টিফিকেট হারালে করণীয়

২. শিক্ষা বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর আবেদন: আপনার সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে প্রথমে আপনি থানায় গিয়ে জিডি করবেন। জিডি করার পরে সেই চিঠির একটি কপি আপনি আপনার শিক্ষা বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর প্রেরণ করবেন। জিডির কপি সহ আরো কিছু কাগজপত্র আপনাকে প্রেরণ করতে হবে।

৩. জরুরী কাগজপত্র প্রেরণ: সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে আপনাকে আপনার শিক্ষাবোর্ড অথবা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর জিডির একটি কপিসহ আপনার পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি, এডমিট কার্ডের ফটোকপি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রত্যয়ন পত্র সত্যায়িত করে প্রেরণ করবেন। সত্যায়িত অবশ্যই কোন প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা দ্বারা করবেন। তা না হলে একটি গ্রহণযোগ্য হবে না।

৪. বোর্ডে যোগাযোগ: সকল কাগজপত্র সত্যায়িত করার পড়ে আপনি যে বোর্ড থেকে পাস করছেন সেই বোর্ডে চলে যাবেন। সেই শিক্ষা বোর্ডে যাওয়ার পরে আপনি সরাসরি সার্টিফিকেট সহকারীর কাছে চলে যাবেন।

আমার পরামর্শ থাকবে আপনি আপনার প্রতিষ্ঠান হতে শিক্ষা বোর্ডে যাতায়াত করে এমন লোকের কাছে এসব কাজ করাবেন। এতে করে আপনার কাজ দ্রুত হয়ে যাবে। এই ধরনের কাজ যদি আপনি নিজে করতে চান তাহলে শিক্ষাবোর্ডে আপনি অনেক ধরনের হয়রানি শিকার হবেন। এছাড়া এসব কাজ নিজে করলে অনেক বেশী সময় লেগে যায়। শিক্ষা বোর্ডের যাতায়াত করে বা শিক্ষা বোর্ডের সাথে জড়িত এমন কাউকে দিয়ে যদি আপনি সার্টিফিকেটের কাজ করেন, তাহলে আপনার কাজটি খুব অল্প সময়ে হয়ে যাবে।

আরও দেখতে পারেনঃ

টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড, আবেদন, সংশোধন 

হারানো সার্টিফিকেট এর জন্য আবেদন

হারানো সার্টিফিকেট তোলার নিয়ম

অনলাইনে: আগে হারানো সার্টিফিকেট এর জন্য আপনাকে শুধুমাত্র শিক্ষা বোর্ডে গিয়ে আবেদন করতে হতো। কিন্তু বর্তমানে আপনি হারানো সার্টিফিকেট এর জন্য অনলাইনে ও আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদন করার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য গুলো পূরণ করে, জিডি, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, এডমিট কার্ডের স্ক্যান কপি অনলাইন আপলোড করতে হবে। তাই এগুলো আগে থেকেই সংগ্রহ করে রাখুন।

অফলাইনে আবেদন: অফলাইনে আবেদন অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। আপনি যে শিক্ষা বোর্ড থেকে পাশ করছেন বা যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করছেন সেখানে গিয়ে সরাসরি আবেদন ফরম পূরণ করে আবেদন করতে পারেন। সেখানেও যাওয়ার সময় জিডি, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, অ্যাডমিট কার্ড এর ফটোকপি নিয়ে যাবেন।

আপনার আবেদন যদি সঠিকভাবে সম্পন্ন হয় তাহলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি নতুন সার্টিফিকেট পেয়ে যাবেন। আপনি নতুন এই সার্টিফিকেট পেলে সার্টিফিকেট এর উপরে এক কোনায় “রি ইস্যু” লেখা থাকবে। এতে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। কারণ এটা দ্বারা বোঝানো হয়েছে আপনার সার্টিফিকেটে হারানোর কারণে আপনি নতুন করে সার্টিফিকেট তুলেছেন। এটা নিয়ে ভবিষ্যতে কোনো ধরনের সমস্যায় পড়তে হবে না।

বন্ধুরা আশা করি আজকের পোস্ট এর মাধ্যমে আপনারা কিছু শিখতে পেরেছেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

আরও দেখতে পারেনঃ

অনার্স চতুর্থ বর্ষের রেজাল্ট দেখার নিয়ম

Shakil Ahamed

চেষ্টা করলে সফল অবশ্যই হওয়া যায়। চেষ্টা নতুন কিছু করার।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button